if you want to remove an article from website contact us from top.

    বাংলা লিপি কোন লিপির বিবর্তিত রূপ

    Mohammed

    বন্ধুরা, কেউ কি উত্তর জানেন?

    এই সাইট থেকে বাংলা লিপি কোন লিপির বিবর্তিত রূপ পান।

    বাংলা লিপি

    বাংলা লিপি

    উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

    বাংলা লিপি লিপির ধরন

    শব্দীয় বর্ণমালা লিপি

    সময়কাল খ্রিস্টীয় একাদশ শতক থেকে বর্তমান[১]

    লেখার দিক বাম-থেকে-ডান

    অঞ্চল বঙ্গ

    ভাষাসমূহ বাংলা, মৈতৈ মণিপুরি, মৈথিলী ভাষা, বিষ্ণুপ্রিয়া মণিপুরী, ককবরক

    সম্পর্কিত লিপি উদ্ভবের পদ্ধতি প্রাক-সিনেটিক লিপি ফিনিশীয় আরামাইক ব্রাহ্মী গুপ্ত লিপি সিদ্ধং লিপি পূর্ব নাগরী লিপি বাংলা লিপি ভগিনী পদ্ধতি

    তিব্বতি লিপি, ওড়িয়া লিপি, অসমীয়া লিপি

    আইএসও ১৫৯২৪

    আইএসও ১৫৯২৪ Beng, 325 , ​বাংলা

    ইউনিকোড ইউনিকোড উপনাম বাঙালি ইউনিকোড পরিসীমা

    U+0980 থেকে U+09FF পর্যন্ত

    এই নিবন্ধে আধ্বব চিহ্ন রয়েছে। সঠিক রেন্ডারিং সমর্থন ছাড়া, আপনি হয়ত ইউনিকোড অক্ষরের বদলে জিজ্ঞাসা চিহ্ন, বাক্স বা অন্য কোনো চিহ্ন দেখবেন।বাংলা লিপি হলো একটি লিখন পদ্ধতি যেটি বাংলা, মণিপুরি, ককবরক, অসমীয়া ভাষায়‌ ব্যবহার করা হয়। পূর্ব নাগরী লিপি থেকে এই লিপির উদ্ভব। বাংলা লিপির গঠন তুলনামূলকভাবে কম আয়তাকার ও বেশি সর্পিল। বাংলা লিপিটি সিদ্ধং লিপি থেকে উদ্ভূত হয়েছে বলে মনে করা হয়। অনুরূপ হিসেবে অসমিয়াকে মনে করা হলেও অসমীয়া লিপির উৎপত্তি বাংলা লিপি উৎপত্তির অন্তত আড়াইশ বছর পর। যে ভিন্নতা (বাংলা র; অসমীয়া ৰ ও ৱ এবং স্বতন্ত্র বর্ণ হিসেবে ক্ষ) আধুনিক বাংলা ও অসমীয়া ভাষায় দেখা যায়, সেটি ১৮ শতকের আগে ছিল না। পরবর্তীতে নিচে ফোঁটা দেওয়া র বাংলায় ব্যবহৃত হয়। পূর্ব নাগরী লিপি বা বাংলা লিপি বিশ্বের ৫ম সর্বাধিক ব্যবহৃত লিখন পদ্ধতি।

    ইতিহাস[সম্পাদনা]

    মূল নিবন্ধ: বাংলা বর্ণমালার ইতিহাস

    এখানে বাংলা-অসমীয়া লিপিতে লেখা রয়েছে, "শ্রীশ্রীমত্‌শিৱসিংহমহাৰাজা" (শ্রীশ্রীমৎশিবসিংহমহারাজা)। লক্ষণীয়, এখানে আধুনিক অসমীয়া "ৱ" ("wô/vô")-এর পরিবর্তে ব্যবহৃত বিন্দু যুক্ত ব় (wô) ব্যবহৃত হয়েছে, যার ধ্বন্যাত্মক মান অপরিবর্তিত। এছাড়াও, অধুনা তির্যক দণ্ডযুক্ত "অনুস্বার" (ং)-এর পরিবর্তে শুধুমাত্র বিন্দু ব্যবহৃত হয়েছে।

    উৎস[সম্পাদনা]

    খ্রীঃ পূঃ দ্বিতীয়-প্রথম শতকে ব্রাহ্মী লিপির উত্তর ভারতীয় লিপিরূপ থেকে জন্ম নেয় কুষাণ লিপি, যা থেকে পরে গুপ্ত লিপির উৎপত্তি হয়। গুপ্ত লিপির ক্রমবিবর্তনের ফলে সিদ্ধমাতৃকা লিপির উৎপত্তি হয়, যার কালক্রমিক পরিণতি থেকে বাংলা লিপি বর্তমান রূপ ধারণ করে।

    বাংলা লিপির ব্যবহার প্রায়ই মধ্যযুগীয় ভারতের পূর্বাঞ্চলে এবং তারপর পাল সাম্রাজ্যের মধ্যে ব্যবহার ছিল। পরে বিশেষভাবে বাংলার অঞ্চলে ব্যবহার করা অব্যাহত ছিল। পরে বাংলা লিপিটিকে ব্রিটিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির রাজত্বের অধীনে ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর দ্বারা আধুনিক বাংলা লিপিতে প্রমিত করা হয়েছিল। বর্তমান দিনে বাংলা লিপিটি বাংলাদেশ ও ভারতে সরকারী লিপির পদমর্যাদা স্থানে আছে, এবং বাংলার মানুষের দৈনন্দিন জীবনের সঙ্গে যুক্ত আছে।

    বাংলা মুদ্রণের প্রথম অর্ধশতাব্দী[সম্পাদনা]

    বাংলা ভাষার ব্যাকরণ রচয়িতা ন্যাথানিয়েল ব্র্যাসি হ্যালহেড কর্তৃক ১৭৭৮ সালে প্রকাশিত আ গ্রামার অব দ্য বেঙ্গল ল্যাঙ্গুয়েজ পুস্তকের স্ক্যান করা প্রচ্ছদ

    ১৭৭৮ সালে ন্যাথানিয়েল ব্র্যাসি হ্যালহেডের (হালেদ) প্রকাশনার মাধ্যমে বাংলা মুদ্রণশিল্পের জন্ম হয়। বইটি ইংরেজি ভাষাতে লেখা হলেও এতে বাংলা বর্ণপরিচয় ও বাংলা লেখার নিদর্শন সবই বাংলা মুদ্রাক্ষরে ছাপা হয়। এই মুদ্রণে প্রথমবারের মত "বিচল হরফ" প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়। এই কৌশলে প্রতিটি হরফের জন্য আলাদা একটি ব্লক থাকে, যে ব্লকটিকে ইচ্ছামত নড়ানো ও বসানো যায়। জার্মানির ইয়োহানেস গুটেনবের্গ ছিলেন এই প্রযুক্তির উদ্ভাবক। বাংলা মুদ্রণে হালেদের বইতে চার্লস উইলকিন্স এবং তার সহকারী পঞ্চানন কর্মকার এই প্রযুক্তি প্রথমবারের মত প্রয়োগ করেন। ধাতুর ব্লকে ঢালাই করা একই আকৃতি একই হরফের জন্য একাধিক পাতাতে ব্যবহার করা যায় বলে বাংলা ছাপা হরফে একটা স্থায়ী, বৈষম্যহীন রূপ এসেছিল। তবে এই প্রথম দিককার হরফগুলি খুব সুদৃশ্য ও পরিণত ছিল না। ইংরেজির তুলনায় বাংলা হরফের আকার ছিল বেশ বড়। ইউরোপে এর প্রায় তিনশত বছর আগেই বিচল হরফে ছাপার প্রযুক্তি শুরু হয়ে গেলেও বাংলাতে এটি ছিল একেবারেই নতুন একটি ঘটনা। চার্লস উইলকিন্স ও তার সহকারী পঞ্চানন কর্মকার সম্ভবত এই বিষয়ে অভিজ্ঞ কারিগর ছিলেন না।

    ১৮০০ সালে শ্রীরামপুরে ব্যাপটিস্ট মিশন প্রেস প্রতিষ্ঠিত হয়। এখানে উইলিয়াম কেরি ও উইলিয়াম ওয়ার্ড ছিলেন ছাপাখানা বিশেষজ্ঞ। তারা সেখানে পঞ্চানন কর্মকারের চাকরির ব্যবস্থা করেন। এদের মিলিত প্রচেষ্টায় বাংলা হরফের চেহারার উন্নতি হতে থাকে। ১৯শ শতকের তৃতীয় দশকেই বাংলা ছাপার চেহারা অনেকখানি পাল্টে যায়। ১৮৩১ সালে ভিনসেন্ট ফিগিন্স সম্ভবত প্রথম বাণিজ্যিকভাবে বিক্রির জন্য বাংলা হরফ তৈরি করেছিলেন।

    এসময়কার বাংলা হরফের বৈশিষ্ট্যগুলি এরকম:

    অনুস্বারের নিচের দাগটি ছিল না। ছিল কেবল গোল চিহ্নটি।

    ব্যঞ্জনের খাড়া দাগের সাথে য-ফলা মিলে বাঁকিয়ে কমলার কোয়ার মত একটা চেহারা ছিল। এগুলি আজও কখনো কখনো দেখতে পাওয়া যায়। আধুনিক কম্পিউটারের লিখন হরফে স্য-তে এর দেখা মেলে।

    "তু" যুক্তাক্ষরটি বর্তমান চেহারা পায়। অর্থাৎ "ত"-এর নিচে "ু" বসিয়ে।

    "স্থ" (স+থ) যুক্তাক্ষরটি হালেদের সময়ে, অর্থাৎ ১৮শ শতকে "স"-এর নিচে পরিষ্কার "থ" লিখে দেখানো হয়েছিল, কিন্তু পরবর্তীতে এটি "স"-এর নিচে ছোট "হ"-এর মত অক্ষর বসিয়ে নির্দেশ করা হয়। ফলে যুক্তাক্ষরটি অস্বচ্ছ রূপ ধারণ করে। এখনো এই অস্বচ্ছ রূপটিই ব্যবহার করা হয়। এরকম আরো বহু যুক্তাক্ষরের অস্বচ্ছ রূপ ১৯শ শতকের শুরুর এই পর্বে নির্দিষ্ট হয়ে যায়।

    "র" অক্ষরটির হরফটি হালেদের সময়ে পেট কাটা "ব" (অসমীয়া ৰ) এবং "ব"-এর নিচে ফুটকি উভয় রূপেই বিদ্যমান ছিল। কিন্তু ১৮শ শতকের মাঝামাঝিতে এই পর্বের শেষে এসে বর্তমান ফুটকিযুক্ত রূপটিই সর্বত্র চালু হয়ে যায়।

    বিদ্যাসাগরীয় সংস্কার[সম্পাদনা]

    মূল নিবন্ধ: বাংলা বর্ণমালার ইতিহাস § বিদ্যাসাগরীয় সংস্কার

    ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর ১৮৪৭ খ্রিষ্টাব্দে সংস্কৃত কলেজের অধ্যাপনা ছেড়ে দিয়ে জীবিকা অর্জনের জন্য একটি ছাপাখানা খোলেন। বিদ্যাসাগর বাংলা বর্ণমালা সংস্কারের জন্য অনেকগুলি প্রস্তাব উত্থাপন করেন। এগুলি হল এরকম:

    সূত্র : bn.wikipedia.org

    বাংলা বর্ণমালা কোন লিপির বিবর্তিত রূপ?

    বাংলা বর্ণমালা কোন লিপির বিবর্তিত রূপ?

    Naznin22

    Asked on April 28, 2021

    সাধারণ জ্ঞান 1 Answers Naznin22

    Answered on September 2, 2019

    Call

    বাংলা বর্ণমালা ব্রাহ্মী লিপির বিবর্তন রূপ

    Answer 1997 Views Related Questions

    স্বার্থক বাংলা উপন্যাসের জনক কে?

    সার্ধক বাংলা উপন্যাসের জনক বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়

    3 Answers 1946 views

    You got it এর বাংলা অর্থ কি?

    You got it? এর বাংলা অর্থ তুমি বুঝতে পেরেছো?

    1 Answers 2651 views

    কতটি খাঁটি বাংলা উপসর্গ রয়েছে বাংলা ভাষায়?

    ২১ টি খাঁটি বাংলা উপসর্গ রয়েছে বাংলা ভাষায়

    1 Answers 1963 views

    উল্টো বর্ণমালা তৈরি করে চোখ পরীক্ষা করা হয় কোন দর্পণ দিয়ে?

    উল্টো বর্ণমালা তৈরি করে চোখ পরীক্ষা করা হয় সমতল দর্পণ দিয়ে।

    1 Answers 1979 views

    বাংলা ক্যালেন্ডারে বাংলা মাস কয়টি ও কি কি?

    মোট ১২ মাস। এগুলো হল বৈশাখ, জ্যৈষ্ঠ, আষাঢ়, শ্রাবণ, ভাদ্র, আশ্বিন , কার্তিক, অগ্রহায়ণ, পৌষ, মাঘ, ফাল্গুন ও চৈত্র।

    1 Answers 1938 views

    দেওপাড়া লিপির রচয়িতা কে?

    দেওপাড়া লিপির রচয়িতা উমাপতি ধর।

    1 Answers 1997 views

    উইঘুদের বর্ণমালা কি?

    উইঘুদের বর্ণমালা আরবি।

    1 Answers 1972 views

    বাংলা একাডেমীর সংক্ষিপ্ত বাংলা অভিধান এর সম্পাদক কে?

    বাংলা একাডেমীর সংক্ষিপ্ত বাংলা অভিধান এর সম্পাদক আহমেদ শরিফ।

    1 Answers 2000 views Ego এর বাংলা কি? Ego এর বাংলা অহং। 1 Answers 2004 views

    অপরাজেয় বাংলা কবে উদ্ধোধন করা হয়?

    অপরাজেয় বাংলা উদ্ধোধন করা হয় ১৬ই ডিসেম্বর, ১৯৭৯ সালে।

    1 Answers 1997 views

    সূত্র : www.bissoy.com

    ReadBD

    বাংলা বর্ণমালা কোন লিপির বিবর্তিত রূপ ? ক) খরোষ্ঠী খ) সংস্কৃত গ) ব্রাহ্মী ঘ) অস্ট্রলীয় উত্তর: গ) ব্রাহ্মী

    Messi vs Ronaldo, all goals, assists, trophies complete stats in single place

    প্রশ্নঃ বাংলা বর্ণমালা কোন লিপির বিবর্তিত রূপ ?

    ক. খরোষ্ঠী খ. সংস্কৃত গ. ব্রাহ্মী ঘ. অস্ট্রলীয় উত্তরঃ গ

    সূত্র : www.readbd.com

    আপনি উত্তর বা আরো দেখতে চান?
    Mohammed 26 day ago
    4

    বন্ধুরা, কেউ কি উত্তর জানেন?

    উত্তর দিতে ক্লিক করুন